রবিবার, ১৯ মে, ২০২৪

ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রতিলিপি করবেন যেভাবে


ড্রাইভিং লাইসেন্স হারিয়ে গেছে বা নস্ট হয়ে গেছে তাহলে জেনে নিন প্রতিলিপি করতে কি কি লাগে? চিপযুক্ত ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রতিলিপি কিভাবে করতে হয়?

২৯ অক্টোবর ২০২৩, ৫:৩২ অপরাহ্ণ 

ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রতিলিপি করবেন যেভাবে
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন

ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রতিলিপি করবেন যে ভাবে। ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রতিলিপি- আমরা যারা মোটর বাইক,গাড়ি বা অন্যান্য মোটরযান চালাই তাদের প্রত্যেকের ড্রাইভিং লাইসেন্স বাধ্যতামূলক অর্থাৎ ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকতে হবে। সড়কে বৈধভাবে গাড়ি চালনার জন্য একজন চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্স খুবই জরুরি। 

কর্মময় ব্যস্ত জীবনে আমরা যারা কাজের উদ্দেশ্যে গাড়ি নিয়ে প্রতিনিয়ত এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যাতায়াত করি ড্রাইভিং লাইসেন্স তাদের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। পেশাগত দায়িত্ব পালন কিংবা ব্যক্তিগত কাজে আমরা কখনও কখনও ব্যস্ত হয়ে পড়ি। আবার এমনও হয় তাড়াহুড়া করতে গিয়ে নিজের অজান্তে অনেক সময় প্রয়োজনীয় জিনিস হারিয়ে ফেলি অতঃপর অনেক খোঁজাখুঁজি করেও পাওয়া যায় না। কিন্তু সেটা যদি হয় ড্রাইভিং লাইসেন্স তাহলে উপায় কি? 

আরও পড়ুন 

কারন ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া তো সড়কে গাড়ি চালানো কিছুতেই সম্ভব না। তাহলে কি আমার চাকুরী চলে যাবে? না; ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকলে চাকুরী চলে যাবে না, এমনটা ভাবা উচিত নয়। এজন্য দুর্ভাবনারও কিছু নেই। কেউ যদি এমন পরিস্থিতির মুখোমুখি হন, তবে আপনার জন্য তাৎক্ষনিক পরামর্শ হল আপনার আশেপাশে বা কাছের পুলিশ স্টেশনে গিয়ে সাথে সাথে সাধারণ ডায়েরি করে নেয়া। কারণ আপনি যখনি ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রতিলিপি করতে brta অফিসে যাবেন তখন আপনার কাছে ড্রাইভিং লাইসেন্স হারানোর প্রামানিক হিসেবে সাধারণ ডায়রির কপি চাইবে যা আপনাকে ফাইলের সাথে জমা দিতে হবে। অন্যতায় ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রতিলিপি করতে পারবেন না। 

আজকের প্রসঙ্গের আজকের এই প্রতিবেদনে থাকছে কোন কারণবশত বা ভুলবশত ড্রাইভিং লাইসেন্স হারিয়ে বা নস্ট হয়ে গেলে কিভাবে অতি সহজে একজন ব্যাক্তি তাঁর চিপযুক্ত-ড্রাইভিং লাইসেন্সের-প্রতিলিপি করতে পারবে এ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা। চলুন তাহলে জেনে নেই, ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রতিলিপি করতে কি কি কাগজপত্র ও কত টাকা ব্যাংক জমা দিতে হবে।

আরও পড়ুন 

প্রতিলিপি করতে যা যা লাগবেঃ- 
১.১) ডিজিটাল আবেদন পত্র পূরণ,
১.২) ড্রাইভিং লাইসেন্সের ফটোকপি ২টি,
১.৩) জাতীয় পরিচয় পত্র ফটোকপি ২টি,
১.৪) জিডি কপি ট্রাফিক ক্লীয়ারেন্স সহ 
১.৫) পাঁচপোর্ট সাইজ ছবি ২ কপি ,
১.৬) ব্যাংক জমা (৯৩২) টাকা, রশিদের মূল ও ফটোকপি ২টি,

তবে এখানে আরেকটি বিষয় উল্লেখ্য যে, আপনি যদি একজন পেশাদার চালক হন সেক্ষেত্রে ড্রাইভিং লাইসেন্স হারিয়ে গেলে প্রতিলিপি করতে যাওয়ার আগে দেখতে হবে আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়নের মেয়াদ কত দিন বাকি আছে। কেননা আপনি যে তারিখে আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্স টি হারিয়েছেন ওই দিন বা তারিখে আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্স এর মেয়াদ কত দিন ছিল। যদি ৬ মাসের বেশী থাকে তবে আপনি পরীক্ষা ছাড়াই ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রতিলিপি করতে পারবেন অন্যতায় আপনাকে পুনরায় 
পরীক্ষা দিয়ে নবায়ন স্লীপ করতে হবে। 

  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন