শনিবার, ২২ জুন, ২০২৪

সর্বাধিক পঠিত


এলাচ খাওয়ার উপকারিতা


২১ অক্টোবর ২০২৩, ৫:৪০ অপরাহ্ণ 

এলাচ খাওয়ার উপকারিতা
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন

এলাচকে সাধারণত আমরা মসলা হিসেবে জানি। এটি তরকারি কিংবা খাবারে দেয়ার ফলে স্বাদ বৃদ্ধি করে থাকে। পায়েসে এলাচ দিলে তার স্বাদ বেড়ে যায় কয়েক গুণ। অনেকেই খাওয়ার পর মুখশুদ্ধি হিসেবে এলাচ খান। খাওয়ার সময়ে এলাচ মুখে পড়লে অনেকের মেজাজটাই বিগড়ে যায়! তবে এর বাইরেও বিভিন্ন ব্যবহার রয়েছে এলাচের। নানা গুণে সমৃদ্ধ এই এলাচ নিয়মিত খাওয়ার ফলে বিভিন্ন উপকার পাওয়া যায়।

আপনি কি জানেন? রান্না ছাড়াও নিয়মিত একটি করে এলাচ খেলে শরীরের নানা রকম সমস্যা দূর হতে পারে। আসুন জেনে নেওয়া যাক প্রতিদিন নিয়মিত এলাচ খেলে কি কি সমস্যা সমাধান হয়।

১. রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ: প্রতিদিন সকালে এলাচ ভেজানো পানি খাওয়ার ফলে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। তাই যাদের উচ্চ রক্তচাপজনিত সমস্যা রয়েছে তারা নিয়মিত সকালে এলাচ ভেজানো পানি খেতে পারেন।

২. রক্ত সঞ্চালন: রক্ত জমাট বাঁধা খুবই জটিল সমস্যা। তবে এই সমস্যা থেকে সহজেই মুক্তি দিতে পারে এলাচ পানি। এটি খাওয়ার ফলে শরীরের রক্ত সঞ্চালনের গতি বৃদ্ধি পায়।

৩. ওজন হ্রাস: নিয়মিত এলাচ ভেজানো পানি খাওয়ার ফলে শরীর থেকে দূষিত পদার্থ দূর করে থাকে। এতে ওজন কমে। তাই যারা বেড়ে যাওয়া অনাকাঙ্ক্ষিত ওজন কমাতে চান তাদের জন্য এলাচ পানি অনেক উপকারী। এছাড়া ত্বকের জন্যও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে এই উপাদন। এই পানি নিয়মিত খাওয়ার ফলে ত্বকে বয়সের তুলনায় দ্রুত বয়সের ছাপ পড়ে না। বরং ত্বক টানটান হয়, বলিরেখা কমে।

আরও পড়ুন

দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখে যেসব খাবার

৪. সর্দি-কাশি নিরাময়: অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে ভরপুর এলাচ। তবে এটি সাধারণত দুই ধরনের হয়ে থাকে- সবুজ এবং কালো। বিশেষজ্ঞ পুষ্টিবিদ জানিয়েছেন- কালো এলাচ সর্দি-কাশি এবং শ্বাসকষ্ট নিরাময়ে কার্যকরী ভূমিকা রাখে। এ জন্য মধুর সঙ্গে কিছু এলাচ গুঁড়ো পানিতে ভালো করে মিশিয়ে নিন। প্রাকৃতিক প্রতিকার হিসেবে এই এলাচ চা অনেক উপকারে আসে। শরীরে উষ্ণতা প্রদান করে।

৫. হজম শক্তি বৃদ্ধি: এলাচের শক্তিশালী গন্ধের কারণে এটি কেবল খাবারের স্বাদই বৃদ্ধি করে না। সেই সঙ্গে সংবেদনশীল উপাদানকেও সক্রিয় করতে সহযোগিতা করে। একইভাবে হজম শক্তি বৃদ্ধি করে থাকে। বদ হজম, গ্যাস এবং কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো পেটের সমস্যা দূর করতে এলাচ অনেক কার্যকর।

৬. মুখের দুর্গন্ধ রোধ: এমন অনেকে আছেন যারা নিয়মিত দাঁত ব্রাশ করার পরও মুখ থেকে দুর্গন্ধ বের হয়। তাদের জন্য এলাচ খুবই উপকারী। এটি নিয়মিত খাওয়ার ফলে এর ফুল ও মিষ্টি সুগন্ধ থেকে মুখে আর কোনো দুর্গন্ধ থাকে না। এছাড়া মুখে দুর্গন্ধ সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়ার বিরুদ্ধে লড়াই করে মুখের স্বাস্থের উন্নতি করে থাকে এলাচ।

৭. চুলকানি প্রতিরোধ: চুলকানির সমস্যা অস্বাভাবিক কিছু নয়। বাজারে পাওয়া সাধারণ মলম ব্যবহারেও কোনো প্রতিকার পাওয়া যায় না। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে বড় এলাচি চন্দনের মতো ঘষে লাগিয়ে ৩০-৪০ মিনিট পর ধুয়ে ফেললে অনেক উপকার পাওয়া যায়।

৮. মাথা ব্যথা দূর: প্রায় কম-বেশি সবারই মাথা ব্যথা হয়ে থাকে। এ জন্য গরম পানিতে এলাচ গুঁড়ো ও মধু মিশিয়ে ফুটিয়ে এলাচ চা তৈরি করুন। মাথা ব্যথার সময় গরম গরম এক কাপ এলাচ চা পানের পর নিজেই উপকারিতা বুঝতে পারবেন।

৯. হাঁপানি ও হৃদরোগ নিরাময়: এলাচ হাঁপানি ও হৃদরোগ নিরাময়ে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এটি হৃদস্পন্দন স্বাভাবিক রাখায় রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। এ ছাড়া এলাচ রক্তসঞ্চালনেও সহায়ক। প্রতিদিন এলাচ খেলে রক্তের ঘনত্ব ঠিক থাকে।

১০. শ্বাসকষ্ট নিরাময়: মধু ও লেবুর রস গরম পানির সঙ্গে একটা এলাচ মিশিয়ে দিয়ে পান করলে শ্বাসকষ্ট দূর হবে। যারা হুপিং কাশি ও ফুসফুস সংক্রমণের মতো সমস্যায় ভোগেন এলাচ তাদের জন্য খুবই উপকারী।

এই বিশেষ মশলাটি সাধারণত ভারত, ভুটান, নেপাল ও ইন্দোনেশিয়ার মত দেশগুলিতে বেশি করে চাষ হয়। দেখতে ক্ষুদ্র এই মশলাকে তার বিশদ গুনাগুনের জন্য সমস্ত মশলার সেরা আখ্যা দেওয়া হয়ে থাকে। তাইতো এলাচকে মশলার রানি বলা হয়। যা খাবারে অতিরিক্ত স্বাদ বাড়ানোর জন্য ব্যবহার করা হলেও রান্নার স্বাদ বাড়ানো ছাড়া ও এর রয়েছে বিভিন্ন ধরনের প্রাকৃতিক উপকারিতা যা স্বাস্থ্যের জন্য বিশেষ উপকারী।

  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন