সোমবার, ১৫ জুলাই, ২০২৪

গণঅধিকার পরিষদের মশারি মিছিল


১৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১২:১৫ অপরাহ্ণ 

গণঅধিকার পরিষদের মশারি মিছিল
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন

রাজধানীতে গণঅধিকার পরিষদ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আয়োজনে প্রেসক্লাবের সামনে শনিবার (১৬ সেপ্টেম্ব) বিকালে "ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সিটি কর্পোরেশনের ব্যর্থতার প্রতিবাদে" সমাবেশ ও মশারি মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে গণঅধিকার পরিষদের সভাপতি নুরুল হক নুর বলেন,আপনারা দেখেছেন মশার ঔষধ কেনার জালিয়াতি ঢাকতেও জালিয়াতি করেছে। ভুয়া কোম্পানি থেকে মশার ঔষধ কিনেছে।দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে জনজীবন পিষ্ট। এরা জনগণের জন্য কিছু করবে না। এই অবৈধ সরকারকে হটিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করে আমরা একটা একটা করে সকল সমস্যার সমাধান করবো। সৎসাহসীদের জনপ্রতিনিধি হিসেবে নির্বাচিত করতে গণঅধিকার পরিষদ গণমানুষের জন্য রাজনীতি প্রতিষ্ঠায় কাজ করছে। শেখ হাসিনা আর ছলছাতুরি করে ক্ষমতায় থাকতে পারবে না। এ বছরই তাকে বিদায় নিতে হবে। আমাদের পরিস্কার কথা, সরকারকে পদত্যাগ করে নিরেপক্ষ সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন দিতে হবে।

তিনি আরো বলেন, গত পরশু ২৭ দেশের জোট ইউরোপীয় ইউনিয়ন বাংলাদেশে অব্যাহত মানবাধিকার লঙ্ঘন,ভিন্নমতের দমন-পীড়ন ও মানবাধিকার কর্মীদের হয়রানিতে উদ্বেগ প্রকাশ করে প্রস্তাব পাশ করেছে। যুক্তরাষ্ট্র,যুক্তরাজ্যে সহ পশ্চিমরা বার বার অবাধ, সুষ্ঠু নির্বাচনের কথা বলছে। সরকার যদি সুষ্ঠু নির্বাচন না করে,বিদেশিরা নিষেধাজ্ঞা দিয়ে সরকারকে আন্তর্জাতিক ভাবে একঘরে করে দিবে। নিষেধাজ্ঞার ফলে ব্যবসা-বাণিজ্য ক্ষতিগ্রস্ত, গার্মেন্টস বন্ধ হয়ে যাবে। জিনিসপত্রের দাম বাড়বে।দেশে দুর্ভিক্ষ সৃষ্টি হবে। সরকার দেশে দুর্ভিক্ষ ডেকে আনছে। 

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আব্দুস সালাম বলেন, একটা ডাব কিনতে ২০০ টাকা লাগে, শেখ হাসিনার তো আর  ডাব কিনে খেতে হয় না,জনগণ যে কষ্টে আছে সেটা তারা বুঝবে না। গত দুইটা নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারেনি। তাই আমরা বলছি এবার অন্তত আল্লারস্তে জনগণ কে ভোট দেয়ার সুযোগটা দিন। আপনি আগে ক্ষমতা ছাড়ুন তারপর নির্বাচন দিন। ভোট দিতে চাওয়া তো আমাদের কোন অপরাধ না।


গণঅধিকার পরিষদের সাধারণ সম্পাদক  রাশেদ খান বলেন,ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে বিনা চিকিৎসায় মানুষ মারা যায়,অথচ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক প্লেনে উড়ে সিঙ্গাপুর চিকিৎসার জন্য চলে যায়। ঢাকার দুই মেয়র ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ, কিন্তু তাদের পদত্যাগ চেয়ে লাভ নাই। কারণ তারা জনগণের ভোটে মেয়র হয়নি যে,তারা জনগণের কাছে জবাবদিহিতা করবে। সরকারের পদত্যাগে যে আন্দোলন চলছে, এই আন্দোলন যেকোন মূল্যে সফল করতে হবে। 

তিনি আরো বলেন,আদিলুর রহমান ও নাসির উদ্দিন এলানের কারাদণ্ডের প্রতিবাদে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট সরকারের অন্যায়, মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে প্রস্তাব পাশ হয়েছে। এখন যদি জিএসপি সুবিধা বাতিল হয়, ইউরোপীয় ইউনিয়নের ২৭ টি দেশ পোশাক আমদানি করা বন্ধ করে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা দেয়,তাহলে দেশে অর্থনৈতিক মন্দা শুরু হবে। এর আগে প্রধানমন্ত্রী বললো, আটলান্টিক মহাসাগর পাড়ি দিয়ে আমেরিকায় যাবেনা। অথচ আগামী রোববার তিনি নিউইয়র্ক যাবেন। দেশের মানুষ না খেয়ে মরে, বাজারে নিয়ন্ত্রণে নাই, নিত্যপণ্যের দাম হুড়হুড় করে বাড়ছে, অথচ ক্ষমতায় থাকার জন্য টাকা পয়সা খরচ করে বিশাল বহর নিয়ে বিদেশে ধর্না দিয়ে বেড়াচ্ছে। আগামীতে বিদেশিদের তাঁবেদারি করে ১৪ ও ১৮ মার্কা নির্বাচন করে ক্ষমতায় আসা যাবেনা। আগামীতে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে, এর বাইরে কোন নির্বাচন হতে দেওয়া হবেনা।

সমাবেশ শেষে প্রেসক্লাবের সামনে থেকে মশারি মিছিল শুরু করে পল্টন মোড় হয়ে বিজয়নগর পানির ট্যাংকির মোড়ে গিয়ে শেষ হয়।

গণঅধিকার পরিষদ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি এ্যাডভোকেট নাজিম উদ্দিনের সভাপতিত্বে এবং সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুহেল রানার সঞ্চালনায় সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন,গণঅধিকার পরিষদ উচ্চতর পরিষদের সদস্য শহিদুল ইসলাম ফাহিম, এ্যাড.নুরে এরশাদ সিদ্দিকী, সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক সোহরাব হোসেন,ছাত্র অধিকার পরিষদের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) তারিকুল ইসলাম, যুব অধিকার পরিষদের সভাপতি মনজুর মোর্শেদ মামুন।