মঙ্গলবার, ১৮ জুন, ২০২৪

সর্বাধিক পঠিত

নিয়মাবলী

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন


জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করার নিয়মাবলী জেনে নিন ।

৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ৫:১৭ অপরাহ্ণ 

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন

আপনার (NID Card) বা জাতীয় পরিচয়পত্রে  কোন প্রকার ভুল থাকলে তা  সংশোধন করার মাধ্যমে সঠিক করে নিতে পারেন। তাহলে জেনে নেয়া যাক , কিভাবে  ভুল তত্ত্ব সংশোধন করা যায়। অনলাইনে জাতীয় পরিচয়পত্রের যে কোন ভুল, সঠিক ভাবে একটি আবেদনের মাধ্যমে পরিবর্তন বা সংশোধন করতে পারবেন। জাতীয় পরিচয়পত্রে নিজের নামে ভুল, জন্মতারিখ, বা বাবা-মার নাম ভুল লিপিবদ্ধ হলে তা খুব সহজে সংশোধন করা যায়। 

প্রথমে মোবাইল বা কম্পিউটার থেকে ভিজিট করুন services.nidw.gov.bd এই সরকারি ওয়েবসাইটে, জাতীয় পরিচয় পত্র নাম্বার, জন্মতারিখ ব্যবহার করে একাউন্ট রেজিস্টার করুন। মোবাইল নাম্বার যাচাই এবং ফেইস ভেরিফিকেশন করে nid website ড্যাশবোর্ড থেকে এডিট প্রোফাইলে ক্লিক করে প্রয়োজনীয় তথ্য সংশোধন করুন। 

সর্বশেষ সংশোধন ফি জমা দিয়ে অনলাইনে আবেদন পত্র  জমা দিন। আবেদন জমা দেয়ার আগে খেয়াল রাখতে হবে চাহিত সংশোধনের জন্য প্রয়োজনীয় প্রমানপত্র আপলোড করতে হবে। আপনার ভোটার আবেদনে যে তথ্য পরিবর্তন করতে চান, তার সত্যতা প্রমান করতে সত্যায়িত কাগজপত্র আবেদনের সাথে জমা দিতে হয়।

তবে তার আগে জেনে নিতে হবে, ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন ফি কত ? ব্যক্তিগত তথ্য সংশোধন ২৩০ টাকা, অন্যান্য তথ্য সংশোধন ১১৫ টাকা, উভয় তথ্য সংশোধন ৩৭৫ টাকা, আইডি কার্ড রিইস্যু (জরুরি) ও আইডি কার্ড রিইস্যু (নিয়মিত) ২৩০ টাকা। আর এসব সংশোধন ফিঃ বিকাশ, রকেট ও নগদ মোবাইল ব্যাংকিং ব্যাবহার করে পরিশোধ করা যায়।

ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিতে হবে, তবে তা নির্ভর করবে জাতীয় পরিচয়পত্রে কি ধরনের তথ্য পরিবর্তন বা ভুল রয়েছে তার উপর। জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করতে শিক্ষাগত যোগ্যতা সনদপত্র, অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সনদ, ড্রাইভিং লাইসেন্স এবং ই পাসপোর্ট এই গুলো সবচাইতে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এখানে উল্লেখ্য যে, কোন ব্যক্তির যদি ঊপরোক্ত সনদপত্র না থাকে সেক্ষেত্রে এফিডেভিট (হলফনামা), নাগরিক সনদ, অয়ারিশ সনদ আপলোড করতে হয় এবং স্বামী কিংবা স্ত্রীর নাম সংশোধন (পরিবর্তন) করতে কাবিন নামার প্রয়োজন হয়।

এছাড়াও জাতীয় পরিচয়পত্রে রক্তের গ্রুপ না দেয়া থাকলে তা যুক্ত করতে অথবা পরিবর্তন করতে মেডিক্যাল ক্লিনিক হতে রক্তের গ্রুপিং টেস্ট রিপোর্ট আপলোড করতে হয় এবং ঠিকানা সংশোধন করতে বিদ্যুৎ, গ্যাস, পানি, টেলিফোন যে কোন একটি বিলের কাগজ জমা দিতে হবে।

জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন আবেদন সঠিক ভাবে জমা হলে  ২৫ দিন থেকে ৩০ দিন এর মধ্যে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন আবেদন অনুমোদন পেয়ে যায়।  তবে এক্ষেত্রে বিশেষ কারণবশত সময়সীমা পরিবর্তন হতে পারে।

  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন