শনিবার, ২২ জুন, ২০২৪

সর্বাধিক পঠিত

চাঁদা দাবী

মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সহ ৩ জনের নামে মামলা


৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ৮:০৩ অপরাহ্ণ 

মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সহ ৩ জনের নামে মামলা
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় চাকামইয়া বেতমোর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি নির্বাচন নিয়ে ৫ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবীর অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সেই সাথে অভিযোগ আমলে নিয়ে ওসি, কলাপাড়া থানাকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। রবিবার (৩ সেপ্টেম্বর) কলাপাড়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আশীষ রায়ের আদালত এ আদেশ প্রদান করেন। জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বেঞ্চ সহকারী মো: মাহবুব মিয়া এ আদেশের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। বিদ্যালয়ের এডহক কমিটির সভাপতি সুমন তালুকদার আদালতে এ মামলা দায়ের করেন। মামলায় উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা, সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহাবুব উল্লাহ(লিটন) ও সহকারী শিক্ষক মোঃ মজিবুর রহমানকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। মামলার বিবরনে জানা যায়, ১৭জুন ২০২৩ আসামীদের পরস্পর যোগসাজশে প্রধান শিক্ষক তার ব্যবহৃত মুঠো ফোন থেকে মামলার বাদীকে বিদ্যালয়ের পরিচালনা

পর্ষদের সভাপতি নির্বাচিত করে দেয়ার জন্য ৫ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করেন। ১৮ জুন প্রধান শিক্ষকের ব্যক্তিগত ব্যাংক হিসাব নং- ৪৩১১১০০১১১০৬৯, সোনালী ব্যাংক, কলাপাড়া বন্দর শাখায় দাবীকৃত টাকার মধ্যে ৫০ হাজার টাকা জমা দেয়া হয়। এরপর চেকের মাধ্যমে তাকে দাবীকৃত  আরও ১ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা প্রদান করা হয়। আসামীরা দাবীকৃত চাঁদার সমুদয় টাকা না পাওয়ায় তাঁরা ৩১ আগষ্ট ২০২৩ অপর একজনকে সভাপতি নির্বাচিত করে বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে অনুমোদনের জন্য পাঠায়।

এদিকে একই দিন বেতমোর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি, নির্বাচন নিয়ে অনিয়মের অভিযোগে সিনিয়র সহকারী জজ মো: আনোয়ার হোসেনের আদালতে বর্তমান কমিটি বাতিল চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। আদালত বিবাদীদের আগামী ৫ কার্য দিবেসের মধ্যে কারন দর্শানোর আদেশ প্রদান করেছেন। মামলায় বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান, বোর্ড পরিদর্শক, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে বিবাদী করা হয়েছে। সহকারী জজ আদালতের বেঞ্চ সহকারী মো: মিজানুর রহমান এ আদেশের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মামলার বাদি সুমন তালুকদার জানান, বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি করে দেবেন বলে প্রধান শিক্ষক যা চেয়েছিলেন আমি তাই দিয়েছি। কমিটির ১০ সদস্যের মধ্যে ০৬ জন আমাকে সভাপতি করতে লিখিতও দিয়েছিলেন। কিন্তু প্রধান শিক্ষক অন্যের কাছ থেকে বেশি টাকা পেয়ে সব ঘুরিয়ে দিয়েছেন।  

  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন