শনিবার, ১৮ মে, ২০২৪

নরসিংদীতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি মামলার রহস্য উদঘাটন আসামী গ্রেফতার


৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৫:৫৪ অপরাহ্ণ 

নরসিংদীতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি মামলার রহস্য উদঘাটন আসামী গ্রেফতার
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন

নরসিংদীর শিবপুরে দুর্ধর্ষ ডাকাতি মামলার রহস্য উদঘাটন আসামী গ্রেফতার ও লুন্ঠিত মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে। আজ সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) নরসিংদী পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে মিডিয়া ব্রিফিং করেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান, পিপিএম।

গত ২৬ জানুযারি দিবাগত রাতে শিবপুরের যশোর বাজার ইউনিয়নে দেবালেরটেকে হাজী মো. মেজবাহ উদ্দিন মেজুর বাড়ীতে বারান্দার গ্রীল কেটে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটে। একই তারিখ দিবাগত রাত আনুমানিক ৩টায় ১০/১২ জন ডাকাত দল টিনসেড ঘরের বারান্দার গ্রীল কেটে ঘরে প্রবেশ করে। ৭জন ডাকাত রুমে প্রবেশ করে মামলার বাদী হাজী মো. মেজবাহ উদ্দিনের স্ত্রীকে ছুরি ও পাইপগান ধরে জিম্মি করে আলমারির লক ভেঙ্গে ১৯ লক্ষ টাকা নিয়ে যায়। এছাড়াও  স্ত্রীর গায়ে থাকা স্বর্ণের গয়না ছাড়াও আলমারিতে রক্ষিত প্রায় ১৬ ভরি স্বর্ণালংকারসহ ০১টি বাটন মোবাইল ফোন নিয়ে যায়। ডাকাতরা নগদ টাকা সহ মোট ৫৩ লক্ষ ৩৬ হাজার টাকার মালামাল লুন্ঠণ করে নিয়ে যায়। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে শিবপুর থানায় মামলা রুজু করা হয়।

এ বিষয়ে মামলা দায়েরের পরে নরসিংদীর পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান, পিপিএম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং তার সরাসরি তত্ত্বাবধানে ও সার্বিক দিকনির্দেশনায় ডিবি পুলিশ তদন্ত শুরু করে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অনির্বাণ চৌধুরী (ক্রাইম অ্যান্ড অপস্), সহকারী পুলিশ সুপার (শিবপুর সার্কেল), মেসবাহ উদ্দিন ও ডিবির ওসি খোকন চন্দ্র সরকার এর নেতৃত্বে জেলা গোয়েন্দা শাখা, নরসিংদীর তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই (নিঃ) সাদেকুর রহমান সঙ্গীয় অফিসার ফোর্সসহ গতকাল রবিবার(০৪ ফেব্রুয়ারি) তারিখ নরসিংদী জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে ঘটনার সাথে জড়িত ৬জন ডাকাত এবং লুন্ঠিত মালামাল ক্রয়কারী শিপন চন্দ্র সূত্রধরকে গ্রেফতার করে এবং তাদের কাছ থেকে ১টি প্রাইভেটকার, নগদ ৫ লক্ষ ২৩ হাজার ৫শত টাকা, ১৭.৫২ গ্রাম গলিত স্বর্ণ, ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত ১টি পাইপগান ও ৪ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলো, রায়পুরা উপজেলা বটতলী খামার পাড়া গ্রামের সিদ্দিকুর রহমানের ছেলে শেখ ফরিদ, শিবপুর উপজেলার নৌকাঘাটা গ্রামের রাজু মিয়ার ছেলে আবুল কাশেম, নরসিংদী সদর উপজেলার চম্পকনগর গ্রামের আঃ রহিমের ছেলে নূরুল ইসলাম, রায়পুরা উপজেলার দড়িবালুয়াকান্দি গ্রামের চান মিয়ার ছেলে মোক্তার হোসেন, রায়পুরা উপজেলার রাজা মিয়ার ছেলে আল আমিন ও সদর উপজেলার বকশালীপুরা গ্রামের আয়নাল মিয়ার ছেলে রাজিব।

এছাড়া লুন্ঠিত মালামাল ক্রয়কারী পলাশ উপজেলার বাটপাড়া দিঘিরপাড় গ্রামের সাধন চন্দ্র সূত্রধরের ছেলে শিপন চন্দ্র সূত্রধরে কে গ্রেফতার করা হয়।

  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন