বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

অবৈধ ছাত্রদের হল ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছেন জাবি প্রশাসন


অবৈধ ছাত্রদের হল ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছেন জাবি প্রশাসন
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) আবাসিক হলগুলোতে অবৈধভাবে অবস্থানকারী শিক্ষার্থীদের আগামী পাঁচ দিনের মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে হল ত্যাগ না করলে সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

গতকাল রবিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) বিকাল তিনটায় উপাচার্য অধ্যাপক ড. নূরুল আলমের সভাপতিত্বে এক জরুরি সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

অফিস আদেশে বলা হয়, যে সকল ছাত্র-ছাত্রী স্নাতকোত্তর পরীক্ষা শেষ করেও নিয়ম বহির্ভূতভাবে হলে অবস্থান করছে তাদেরকে আগামী পাঁচ দিনের মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হলো। উক্ত সময়ের মধ্যে হল না ছাড়লে সংশ্লিষ্ট ছাত্র-ছাত্রীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এছাড়াও ক্যাম্পাসে অনুমোদনহীন অটো রিকশা  চলাচল বন্ধ করা, ভাসমান দোকানপাট উচ্ছেদ এবং ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

সিন্ডিকেট সভা থেকে সন্ধ্যা ছয়টায় জানানো হয়, আবাসিক হলে বহিরাগত দম্পতিকে ডেকে এনে স্বামীকে আটকে রেখে তার স্ত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত মোস্তাফিজের সনদ স্থগিত ও ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হয়েছে। পলায়নের নির্দেশদাতা শাহ পরান ও পলায়নে সহায়তাকারী হাসানুজ্জামানের ছাত্রত্ব শেষ হয়ে যাওয়ায় তাদের সনদ স্থগিত করা হয়েছে। একই সাথে হাসানুজ্জামানকে ক্যাম্পাসে অবাঞ্চিত ঘোষণা করা হয়েছে৷ সিন্ডিকেটের তারিখ অর্থাৎ ৪ ফেব্রুয়ারী অপরাহ্ন থেকে এ আদেশ কার্যকর হবে।

এছাড়া, ভুক্তভোগীর স্বামীকে ৩১৭ নং কক্ষে আটকে রাখার অভিযোগে মো. মুরাদ হোসেনকে সাময়িক বহিষ্কার ও সনদ প্রদান স্থগিত ও ক্যাম্পাসে অবাঞ্চিত ঘোষণা করা হয়৷ এছাড়া হলের তালা ভেঙে অভিযুক্তকে পলায়নে সহায়তা করার অভিযোগে সাব্বির আহমেদ সাগর ও এ এস এম মোস্তফা মনোয়ার সিদ্দিকীকে সাময়িক বহিষ্কার, সনদ স্থগিত ও ক্যাম্পাসে অবাঞ্চিত ঘোষণা করা হয়েছে।

সিন্ডিকেট সভায়, এ ঘটনায় প্রক্টরিয়াল বডির প্রাথমিক প্রতিবেদন গ্রহণ ও প্রচলিত আইন অনুযায়ী মামলা করার নেয়া হয়েছে। অধ্যাপক ড. অজিত কুমার মজুমদারকে সভাপতি করে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন, লোকপ্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক ছায়েদুর রহমান, নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আফসানা হক, সদস্য সচিব আইন কর্মকর্তা মাহতাব-উজ-জাহিদ। কমিটিকে ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে উপাচার্য অধ্যাপক নুরুল আলম বলেন, ‘অভিযুক্ত শিক্ষার্থীদের সনদ স্থগিতের পাশাপাশি তাদেরকে ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত করা হয়েছে। ক্যাম্পাস বহিরাগতদের প্রবেশ ও অস্থায়ী দোকানপাট নিষিদ্ধ করা হয়েছে। অছাত্রদের আবাসিক হল থেকে বের হওয়ার নির্দেশনা দিয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রচার করা হবে। তারা বের না হলে বিধি অনুযায়ী শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। গঠিত কমিটি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করবে।’

প্রসঙ্গত, গত শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে  নয়টায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের মীর মোশাররফ আবাসিক হলের ৩১৭ নং কক্ষে স্বামীকে আটকে রেখে স্ত্রীকে কৌশলে  বোটানিক্যাল গার্ডেনের পেছনে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করেন আসামি মোস্তাফিজুর রহমান ও মামুনুর রশীদ মামুন।

  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন