শনিবার, ২২ জুন, ২০২৪

সর্বাধিক পঠিত


ভোলায় কোনো প্রকার সহিংসতা ছাড়াই ভোট সম্পন্ন, স্বতন্ত্র প্রার্থীর ভোট বর্জন, আটক-৫


ভোলায় কোনো প্রকার সহিংসতা ছাড়াই ভোট সম্পন্ন, স্বতন্ত্র প্রার্থীর ভোট বর্জন, আটক-৫

সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহন | ছবি: আজকের প্রসঙ্গ

  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন

ভোলা প্রতিনিধিঃ কোনো প্রকার সহিংসতা ছাড়াই ভোলার চারটি আসনের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহন শেষ হয়েছে। তবে অনিয়মের অভিযোগ এনে ভোলা-৩ আসনের ঈগল প্রতিকের স্বতন্ত্র প্রার্থী মেজর (অব.) জসিম উদ্দিন ভোট বর্জন করেছেন। এ আসনে জাল ভোট দিতে আসায় পাঁচ জনকে আটক করা হয়। পরে বিকেল ৪টার পর এদের মধ্যে এক জনকে ১০হাজর টাকা জরিমানা ও চার জনকে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। এ তথ্য নিশ্চিত করেন লালমোহন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব-উল আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

দিনভর ভোলা-১, ভোলা-২ ও ভোলা-৩ আসনের বিভিন্ন ভোট কেন্দ্রে ঘুরে দেখা গেছে, সকাল থেকে ভোট কেন্দ্রগুলোতে ভোটারদের কিছুটা উপস্থিতি দেখা গেলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথে ভোটার উপস্থিতি কমে যায়। তবে চারটি আসনে আওয়ামী লীগের বিপক্ষে শক্ত কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় ভোটের মাঠ ছিলো অনেকটা ঢিলেঢালা।

এর মধ্যে দুপুরের দিকে কেন্দ্রে থেকে এজেন্ট বের করে দেয়া ও ভোটারদের কেন্দ্রে যেতে বাঁধা প্রদানের অভিযোগ এনে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন ভোলা-৩  আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী মেজর (অব.) মো. জসিম উদ্দিন। তার ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডিতে একটি ভিডিও বার্তার মাধ্যমে তিনি এ ঘোষণা দেন।

ভিডিও বার্তায় ঈগল প্রতিকের স্বতন্ত্র প্রার্থী জসিম উদ্দিন জানান, সরকার ও নির্বাচন কমিশন একটি অংশগ্রহণমূলক এবং আনন্দমুখর নির্বাচনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলো। আজ সকাল থেকে তিনি বিভিন্ন ভোট কেন্দ্রে গিয়ে দেখেন কোনো ভোটার নেই। কেন্দ্রের বাইরে নৌকার কিছু লোক দাড়িয়ে থেকে তারাই বারবার ভোট দিচ্ছেন। ভোটার না থাকার কারন হলো ভোটারদের নানাভাবে ভয়ভীতি দেখানো হয়েছে, যাতে তারা যেনো কেন্দ্রে না আসে। ভোটারদের ভয়ভীতির বিষয়ে একাধিক অভিযোগ করা হলেও কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। যার কারনে প্রতিটি কেন্দ্রেই ভোট প্রকাশ্যে নেয়া হচ্ছে। প্রকাশ্যে ভোট নেয়াটা একটা প্রহসনের নির্বাচন। তাই তিনি এ প্রহসনের নির্বাচন থেকে নিজের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। একই সাথে তার সকল সমর্থক, ভোটার ও এজেন্টদের কেন্দ্র ত্যাগ করতে নির্দেশ দেন। কারন তিনি তার অনুসারীদের নির্যাতনের শিকার দেখতে চান না। তিনি একটি শান্তিপূর্ণ নির্বাচন। তাই এ তিনি এ নির্বাচনকে বাতিল করে পুনরায় নির্নাচন দেয়ার জন্য সরকার ও নির্বাচন কমিশনের কাছে অনুরোধ জানান।

তবে ভোলা-৩ আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থী নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, মেজর (অব.) জসিম উদ্দিন প্রচারণার শুরু থেকেই নানা গুজব ও ভিত্তিহীন অভিযোগ করে যাচ্ছে। সাংগঠনিকভাবে তার কোনো জনবল নেই। এমনকি কেন্দ্রে এজেন্ট দেয়ার লোকও তার ছিলো না। তার পরাজয় নিশ্চিত জেনে সে এখন মিথ্যা অভিযোগ এনে নির্বাচন বর্জন করেছেন।
 

  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন