শুক্রবার, ১৪ জুন, ২০২৪

ভোলায় পুলিশ-বিএনপি ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া; ক্লিনিক ভাঙচুর


ভোলায় পুলিশ-বিএনপি ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া; ক্লিনিক ভাঙচুর
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন

জবি প্রতিনিধি (ভোলা): আগামী শনি ও রবিবার বিএনপির ডাকা দুই দিনের হরতালের সমর্থনে মিছিলকে কেন্দ্র করে ভোলায় পুলিশ-বিএনপি ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় পুলিশকে লক্ষ্য করে বিএনপি নেতাকর্মীরা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। পুলিশ একটি বেসরকারি ক্লিনিকে আশ্রয় নিলে বিএনপির নেতাকর্মীরা ক্লিনিক লক্ষ করে ইট-পাটকেল ছুড়ে ক্লিনিকের দরজার গ্লাস ভেঙে ফেলে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ এসে তাদেরকে ধাওয়া দিলে মিছিলটি ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়।

আজ শুক্রবার (০৫ জানুয়ারী) দুপুর আড়াইটার দিকে ভোলা শহরের উকিলপাড়া নিজাম হাসিনা চক্ষু হাসপতালের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, জুমার নামাজের পর ভোলা শহরের নিজাম-হাসিনা ফাউন্ডেশন জামে মসজিদ থেকে বের হয়ে জেলা বিএনপির সদস্য সচিব রাইসুল আলমের নেতৃত্বে বিএনপির কয়েকশত নেতাকর্মী হরতালের সমর্থনে একটি ব্যাণার নিয়ে মিছিল বের করে।

এসময় সেখানে থাকা পুলিশ তাদেরকে বাঁধা দিয়ে তাদের কাছ থেকে মিছিলের ব্যানার ছিনিয়ে নিয়ে যায়। পুলিশের বাঁধা অতিক্রম করে মিছিল নিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীরা শহরের বাংলাস্কুল মোড়ের দিকে এগিয়ে আসলেও পুলিশের ধাওয়ায় আসতে দৌড়ে পালিয়ে যায়। এর মধ্য থেকে কয়েক জন নেতাকর্মী পুলিশকে লক্ষ করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে।

এক পর্যায়ে সেখানে থাকা ভোলা সদর থানার ওসি মনির হোসেন মিঞাসহ ব্যাণার ছিনিয়ে নেয়া পুলিশ সদস্য উকিলপাড়ায় অবস্থিত ল্যাবএইড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মধ্যে প্রবেশ করলে মিছিলকারীরা ক্লিনিকের ফটকে ভাঙচুর চালায়। পরবর্তীতে অতিরিক্ত পুলিশ আসলে মিছিলকারীরা পালিয়ে যায়।

মিছিলে ভোলা জেলা বিএনপি সদস্য সচিব রাইসুল আলম, যুগ্ম আহবায়ক হারুন অর রশিদ ট্রুম্যান, বশির হাওলাদার, লোকমান গোলদার, সদস্য আলহাজ্ব ইয়ারুল আলম লিটন, তরিকুল ইসলাম কায়েদ, বেলাল হোসেন, মাহে আলম, মহাসিন, সদর উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব হেলাল উদ্দিন, পৌর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ হোসেন মনির, ভোলা জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আল-আমিন, সহ সভাপতি রবিন চৌধুরী, লুকু চৌধুরী, উপজেলা সেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহবায়ক কাজী নজরুলসহ বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

ভোলা সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনির হোসেন মিঞা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। এছাড়া যে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে বলেও জানান ওসি।

  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন