শনিবার, ২২ জুন, ২০২৪

সর্বাধিক পঠিত


নরসিংদীর ৪টি আসনে নৌকার সঙ্গে স্বতন্ত্রের হবে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই


নরসিংদীর ৪টি আসনে নৌকার সঙ্গে স্বতন্ত্রের হবে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন

জেলা প্রতিনিধি (নরসিংদী): আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নরসিংদীর ৫টি আসনের মধ্যে ৪টিতে নৌকার বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে লড়াই হবে ৪ আওয়ামী লীগ নেতার। তাদের মধ্যে রয়েছেন বর্তমান মন্ত্রী, সাবেক মন্ত্রী ও বর্তমান সংসদ সদস্যও। ইতোমধ্যে এসব আসনে নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের আভাস মিলেছে।

আওয়ামী লীগের ৪ নেতার মধ্যে নরসিংদী-৩ শিবপুর আসনে সাবেক সংসদ সদস্য মো. সিরাজুল ইসলাম মোল্লা এবার স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন। অন্যদিকে স্বতন্ত্রের লড়াইয়ে ভোটযুদ্ধে নামা দুজন সদ্য উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের পদ ছেড়ে সংসদ নির্বাচনের লড়াইয়ে অবতীর্ণ হয়েছেন। তারা হলেন- নরসিংদী-৪ (মনোহরদী-বেলাব) আসনে মনোহরদী উপজেলা পরিষদের ৫ বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান  মো. সাইফুল ইসলাম খান বীরু (প্রতীক ঈগল) এবং নরসিংদী-৫ (রায়পুরা) আসনে উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান চৌধুরী। এ ছাড়া নরসিংদী-২ (পলাশ) আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন বর্তমান সংসদ সদস্য ডা. আনোয়ারুল আশরাফ খান দিলীপ। এখানে তার সঙ্গে ভোটযুদ্ধে লড়াই করার মতো কোনো শক্তিশালী স্বতন্ত্র প্রার্থী নেই।

নরসিংদী-১ সদর এ আসনে এবারও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন সাবেক মন্ত্রী ও বর্তমান সংসদ সদস্য লে. কর্নেল (অব.) মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম (বীর প্রতীক)। এখানে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ভোটযুদ্ধে নেমেছেন নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক নরসিংদী পৌরসভার মেয়র মো. কামরুজ্জামান কামরুল। তিনি একজন প্রতিদ্ব›দ্বী বলে মনে করা হচ্ছে। এ আসনে ভোটের মাঠে থাকছেন আরও দুজন। তারা হলেন মো. জাকারিয়া, স্বতন্ত্র, প্রতীক ট্রাক এবং জাতীয় পার্টির মো. ওমর ফাররুক ভূইয়া (লাঙ্গল)। এ আসনে নৌকা ও ঈগলের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে বলে আভাস পাওয়া যাচ্ছে।

নরসিংদী-২ (পলাশ) আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন বর্তমান সংসদ সদস্য ডা. আনোয়ারুল আশরাফ খান দিলীপ। এ আসনে ভোটের মাঠে থাকছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আফরোজা সুলতানা (দোলনা) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মাসুম বিল্লাহ (ঈগল)।  

নরসিংদী-৩ (শিবপুর) আসনে অনেক নাটকীয়তার পর অবশেষে নৌকা পেলেন না বর্তমান সংসদ সদস্য মো. জহিরুল হক ভূইয়া মোহন। তিনি দুইবার এ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। মনোনয়ন পাননি সাবেক সংসদ সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লা। এবার মনোনয়ন পেয়েছেন সন্ত্রাসীদের হাতে নিহত সাবেক সংসদ সদস্য রবিউল আউয়াল খান কিরনের ছেলে ফজলে রাব্বি খান। রাজনৈতিক পরিবারে এবার নৌকার মনোনয়ন পেলেও সাবেক সংসদ সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লা স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছেন। এতে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছেন নৌকার তরুণ মাঝি ফজলে রাব্বি খান। এমনই ধারণা করছেন সাধারণ ভোটাররা।

নরসিংদী-৪ (মনোহরদী-বেলাব) আসনে এবারও মনোনয়ন পেয়েছেন বর্তমান সংসদ সদস্য শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। মনোহরদী-বেলাব উপজেলা নিয়ে গঠিত এ আসনটিতে শিল্পমন্ত্রীর সফলতা-ব্যর্থতা নিয়ে দলীয় নেতা-কর্মীদের মধ্যে রয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। পাশাপাশি রয়েছে তৃণমূলে দলীয় কর্মীদের অভ্যন্তরীন কোন্দল। এখানে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন আওয়ামী লীগ থেকে ২বার মনোনয়ন চেয়ে বঞ্চিত হওয়া মনোহরদী উপজেলা পরিষদের ৫ বারের সাবেক চেয়ারম্যান ও নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মো. সাইফুল ইসলাম খান বীরু। সাইফুল ইসলাম খান বীরুর স্বতন্ত্র প্রার্থিতা ঘোষণার পরপরই কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছেন নৌকার মাঝি নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন ইতোমধ্যে বিভিন্ন পথসভা, উঠান বৈঠকে বীরু সমর্থকদের রাজনীতি না করা, নড়াচড়া না করা এ ধরণের হুমকি-ধমকি দিয়েছেন।

এসব হুমকি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঘুরে বেড়াচ্ছে। যার ফলে এই আসনে সাধারণ মানুষদের মুখে মুখে উঠে গেছে ঈগলের জয়ধ্বনি। এখানে মন্ত্রীর সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে স্বতন্ত্র প্রার্থী সাইফুল ইসলাম খান বীরুর। এছাড়া এ আসনে ভোটের মাঠে রয়েছেন এমদাদুল হক ভুলন, বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তিজোট, প্রতীক ঘুড়ি ও মো. কামাল উদ্দিন জাতীয় পার্টি (লাঙ্গল)।

একই দশা হতে পারে নরসিংদী-৫ রায়পুরা আসনেও। এখানে এবারও মনোনয়ন পেয়েছেন ৫ বারের সংসদ সদস্য সাবেক ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী বর্তমান এমপি রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু। রায়পুরার উন্নয়নে রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজুর অবদান অনস্বীকার্য হলেও দলীয় কোন্দল, চরাঞ্চলের সংঘাতসহ নানা কারণে তিনি কিছুটা চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে পারেন। এ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনযুদ্ধে নেমেছেন রায়পুরা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমান চৌধুরী। এখানে নৌকার সঙ্গে ঈগলের হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ আসনে ভোটের মাঠে আছেন মো. সোলেমান খন্দকার (স্বতন্ত্র, কাচি)।

  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন