শনিবার, ২২ জুন, ২০২৪

সর্বাধিক পঠিত


সংঘর্ষে বরিশালে একজন নিহত, ১২ স্থানে আহত ৭৬


৩০ ডিসেম্বর ২০২৩, ১২:০৭ অপরাহ্ণ 

সংঘর্ষে বরিশালে একজন নিহত, ১২ স্থানে আহত ৭৬
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে বরিশালে প্রধানমন্ত্রীর জনসভাস্থলে ঢোকার সময় দুই পক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। নোয়াখালীতে দুজন সাংবাদিকসহ ১২ জন আহত হয়েছে। এ ছাড়া দেশের আরও ১২ স্থানে হামলা-সংঘর্ষে ৭৬ জন আহত হয়েছে। নির্বাচনী কার্যালয়ে দেওয়া হয়েছে আগুন। গত বৃহস্পতিবার ও গতকাল শুক্রবার এসব ঘটনা ঘটে।

বরিশাল: বরিশালের বঙ্গবন্ধু উদ্যানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভায় ঢোকার সময় দুই পক্ষের সংঘর্ষ হয়। গতকাল শুক্রবার (২৯ ডিসেম্বর) দুপুরের এ ঘটনায় একজন নিহত ও অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে ১৩ জনকে শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহত ব্যক্তির নাম সিরাজ সিকদার। তিনি হিজলা উপজেলার কুড়ালিয়া গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন।

বরিশাল-৪ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী সংসদ সদস্য পংকজ নাথ এবং নৌকার প্রার্থিতা বাতিল হওয়া ড. শাম্মী আহমেদের অনুসারীরা সিরাজকে নিজেদের কর্মী বলে দাবি করেছেন। দুই পক্ষই বলছে, সিরাজ সংঘর্ষে নিহত হয়েছেন। তবে পুলিশের দাবি, তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক কবির উদ্দিন বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে সিরাজের মৃত্যু হয়েছে।’

স্বতন্ত্র প্রার্থী পংকজ নাথের অনুসারী মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ভুট্টো মোল্লা বলেন, মিছিল নিয়ে জনসভাস্থলে ঢুকছিলাম। আগে থেকে অবস্থান নেওয়া ড. শাম্মীর অনুসারীরা বোতল নিক্ষেপ শুরু করেন। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি হয়। তখন লাঠি দিয়ে পিটিয়ে সিরাজসহ ১৫ জনকে জখম করা হয়।

ড. শাম্মীর অনুসারী হিজলা উপজেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মঞ্জুর মোর্শেদ জানান, তাঁরা আগে থেকে জনসভাস্থলে ছিলেন। পংকজ নাথের অনুসারীরা প্রবেশ করে মারামারি শুরু করেন। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়। সিরাজ নিচে পড়ে গিয়ে অসুস্থ হন। হাসপাতালে নেওয়ার পর সিরাজকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। সিরাজ সিকদার ড. শাম্মী অনুসারী ছিলেন বলে দাবি করেন মঞ্জুর মোর্শেদ।

নোয়াখালী: বেগমগঞ্জে গাবুয়ায় নৌকার সমর্থকদের হামলায় টেলিভিশন চ্যানেল এটিএন বাংলার ভোটের গাড়িসহ দুটি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার (২৯ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় গাবুয়া বাজারে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় এটিএন বাংলার দুই সংবাদকর্মী এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীর ১০ জন সমর্থক আহত হয়েছে। আহতদের বেগমগঞ্জ উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

খবর পেয়ে বেগমগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও বেগমগঞ্জ থানার ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে আসেন।

গোপালগঞ্জ: মুকসুদপুরে নৌকা ও ঈগলের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে নারীসহ ২০ জন আহত হয়েছে। এ সময় তিনটি দোকান ও আটটি বাড়িঘর ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর মোচনা ইউপি চেয়ারম্যান এমদাদ মোল্লাকে প্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার (২৯ ডিসেম্বর) সকালে শুয়াশুর গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দারা জানায়, নৌকার প্রার্থী মুহাম্মদ ফারুক খান ও স্বতন্ত্র মো. কবির মিয়ার (ঈগল) সমর্থকদের মধ্যে প্রথমে কথা-কাটাকাটি হয়। এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে দুই পক্ষের লোকজন দেশি অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়।

মুকসুদপুর থানার ওসি মোহাম্মাদ আশরাফুল আলম বলেন, নৌকা ও ঈগলের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় মোচনা ইউপি চেয়ারম্যান এমদাদ মোল্লাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

আদমদীঘি (বগুড়া): আদমদীঘিতে আলমারি প্রতীকের প্রার্থী জাকারিয়া হোসেনের পোস্টার পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল শুক্রবার (২৯ ডিসেম্বর) দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

ঘাটাইল (টাঙ্গাইল): টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে এক ইউপি সদস্যসহ দুই পক্ষের পাঁচজন আহত হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার (২৮ ডিসেম্বর) রাতে উপজেলার লক্ষ্মীন্দর ইউনিয়নের বাঘাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সাগরদিঘী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ভিক্টর ব্যানার্জি।

টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ডা. কামরুল হাসান খান। অন্যদিকে ঈগল প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র নির্বাচন করছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক ধর্মবিষয়ক সম্পাদক আমানুর রহমান খান রানা।

ঈগলের সমর্থক রফিকুল ও নুরুল ইসলাম বলেন, লক্ষ্মীন্দর ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান স্বতন্ত্র প্রার্থীর কয়েকজন সমর্থককে ডেকে নিয়ে গালাগাল করছিলেন। এ সময় নৌকার কিছু সমর্থক তাঁদের ওপর হামলা চালায়।

নৌকার সমর্থক ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান বলেন, নির্বাচন উপলক্ষে খিচুড়ি খাওয়ার আয়োজন করেছিল স্থানীয় সমর্থকরা। আমরা আমাদের মতো আলোচনা করছিলাম। এ সময় হঠাৎ ঈগল প্রতীকের প্রার্থীর সমর্থকরা এসে আমাদের অফিস ভাঙচুর করে ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতিকে মারধর করে। এক পর্যায়ে দুই পক্ষের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে।

ফরিদপুর: ফরিদপুর-৩ (সদর) আসনের নর্থ চ্যানেল ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী এ কে আজাদের দুই সমর্থকের ওপর হামলার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল শুক্রবার (৩০ ডিসেম্বর) সকালে এ হামলার ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন আব্দুল আজিজ শেখ ও সিদ্দিক শেখ।

চান্দিনা (কুমিল্লা): চান্দিনায় নৌকা প্রতীকের নির্বাচনী অফিসে ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। গত বৃহস্পতিবার (২৮ ডিসেম্বর) রাতে পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ড হারং গ্রামের বকসির পোল এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে।

কেশবপুর (যশোর): কেশবপুরে গত বৃহস্পতিবার (২৮ ডিসেম্বর) গভীর রাতে দুর্বৃত্তরা নৌকা প্রতীকের একটি নির্বাচনী কার্যালয়ে আগুন দিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে পৌর এলাকার বায়সা নূরপুর এলাকায়। আগুনে কার্যালয়ের চেয়ার ও প্যান্ডেলের কিছু অংশ পুড়ে গেছে।

মহাদেবপুর (নওগাঁ): মহাদেবপুরে পৃথক হামলা-সংঘর্ষে ১২ জন আহত হয়েছে। এর মধ্যে নৌকা ও ট্রাকের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে ১০ জন ও দুর্বৃত্তদের হামলায় দুজন আহত হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার (২৮ ডিসেম্বর) রাতে ঘটনা দুটি ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের সূত্রে জানা গেছে, কয়েক দিন আগে সড়কের পাশের একটি গাছে নৌকার ব্যানার টাঙান আওয়ামী লীগের প্রার্থী সৌরেন্দ্রনাথ চক্রবর্ত্তীর কর্মী-সমর্থকরা। গত বৃহস্পতিবার (২৮ ডিসেম্বর) বিকেলে ওই গাছের নিচে স্বতন্ত্র প্রার্থী ছলিম উদ্দীনের ট্রাক প্রতীকের নির্বাচনী অফিস করেন তাঁর কর্মী-সমর্থকরা। রাতে অফিস উদ্বোধনের জন্য হাতুড় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, গিয়াস মাস্টার, লোকমান হোসেনসহ স্বতস্ত্র প্রার্থীর ১০-১২ জন কর্মী সেখানে যান। এ সময় তাঁরা তাঁদের অফিসের ওপরে টাঙানো নৌকার ব্যানার ছিঁড়ে ফেলেন। এ সময় বাধা দিলে নৌকার কর্মী-সমর্থকের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়।

অন্যদিকে নির্বাচনী প্রচারণা শেষে বাড়ি ফেরার পথে জাতীয় পার্টির কর্মীদের ওপর হামলা করা হয়েছে। হামলায় দুই কর্মী আহত হয়েছে বলে দাবি জাতীয় পার্টির প্রার্থী মাসুদ রানার।

রংপুর: পীরগঞ্জে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। গত বৃহস্পতিবার (২৮ ডিসেম্বর) বিকেলে উপজেলার বড় আলমপুর ইউনিয়নের পত্নীচড়া বাজারে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ একজনকে আটক করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের সূত্রে জানা গেছে, বিএনপির ভোট বর্জনের প্রচারপত্র বিলির সময় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা-কাটাকাটির জেরে এ ঘটনা ঘটে।

খাগড়াছড়ি ও পানছড়ি: পানছড়িতে নির্বাচনী প্রচারণা চলাকালে তৃণমূল বিএনপির প্রার্থী উশ্যে প্রু মারমার সমর্থকদের মারধর ও গাড়ি ভাঙচুর অভিযোগ উঠেছে। গতকাল শুক্রবার (৩০ ডিসেম্বর) দুধকছড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। এ সময় কয়েকটি মোটরসাইকেল ও দুটি গাড়িও ভাঙচুর করা হয়। তখন প্রার্থীও উপস্থিত ছিলেন।

হামলার ঘটনায় পাহাড়ের আঞ্চলিক সংগঠন ইউপিডিএফকে দায়ী করেছে। তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ইউপিডিএফের জেলা সংগঠক অংগ্য মারমা।

শরীয়তপুর : শরীয়তপুরের নড়িয়ায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী এ কে এম এনামুল হক শামীমের একটি নির্বাচনী ক্যাম্পে আগুন দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল শুক্রবার (২৯ ডিসেম্বর) ভোরে বাহেরকুশিয়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন