শুক্রবার, ১৪ জুন, ২০২৪

শীতকালে মানুষ কেন বেশি বিয়ে করেন?


১৩ ডিসেম্বর ২০২৩, ৪:০৯ অপরাহ্ণ 

শীতকালে মানুষ কেন বেশি বিয়ে করেন?
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন

শীতকালের সঙ্গে বিয়ের একটা মধুর সম্পর্ক আছে। যাঁরা বিয়ে করবেন করবেন ভাবছেন, তাঁরা শীতের এক সুন্দর দিনের জন্য অপেক্ষায় থাকেন। বছরের যেকোনো সময়ের তুলনায় শীত এলেই বিয়ের ধুম পড়ে যায়। এজন্য শীতকালকে বলা হয়ে থাকে বিয়ের মৌসুম। শীতের সঙ্গে বিয়ের যেন একটা মধুর সম্পর্ক আছে। বছরের যেকোনো সময়ের তুলনায় শীত এলেই বিয়ের ধুম পড়ে যায়। কিন্তু শীতকালেই কেন এত মানুষ বিয়ে করেন? অনেকেই এটার অনেক কারণের কথা বলেন।

জেনে নিন শীতে বিয়ের নানা সুবিধাজনক দিক-

দেশে যত বিয়ে হয়, তার একটা বড় অংশ হয় এই সময়ে। যারা বিয়ে করবেন ভাবছেন, তারা শীতের এক সুন্দর দিনের জন্য অপেক্ষায় থাকেন। কেননা, এই সময় স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ প্রায় সমস্ত প্রতিষ্ঠানের একটা বার্ষিক ছুটি চলে। তাই আত্মীয়স্বজন যে যেখানে আছেন, সবাই মিলিত হতে পারেন। বিয়ের মতো একটা বড় আয়োজনের জন্য যথেষ্ট সময় পাওয়া যায়।

শীতকালের সঙ্গে বাঙালির উৎসবের একটা সম্পর্ক আছে। শীতে বিয়ের মতো আয়োজন অনেক সহজ হয়ে যায়। মেকআপ থেকে খাওয়া-দাওয়া সবকিছুই করা যায় স্বস্তিতে। বিয়ের আয়োজনে কনেকে সবচেয়ে সুন্দর দেখানো চাই। তাই সব মেয়েই বউ সাজার জন্য পছন্দ করেন শীতকাল। যত দামি মেকআপই হোক না কেন, গরমে ঘেমে নষ্ট হয়ে যাওয়ার ঘটনা খুবই স্বাভাবিক। শীতকালে সেই ভয় নেই। দিব্যি ইচ্ছেমতো বউ সাজার স্বাধীনতা পাওয়া যায়।

এ ছাড়া গরমকালে খাওয়া-দাওয়া রয়েসয়ে খেতে হয়। একটু এদিক-সেদিক হলেই পেটে সমস্যা হয়ে যায়। বিয়ে মানেই বিশেষ খানাপিনা। তাই বিয়ের জন্য শীতকালই উপযুক্ত সময়।

বিয়ে মানেই খাটাখাটুনি। গরমে একটু পরিশ্রমেই হাঁপিয়ে উঠতে হয়। শীতে সেই ভয় নেই। বরং বিয়ের উৎসবে উচ্চ আওয়াজের গান ছেড়ে দিয়ে ছুটাছুটি করে কাজ করলে শীত কম লাগে।

এ ছাড়াও বিয়ের খুবই গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ হলো ফুল। যা শীতকালে খুবই সহজলভ্য। এ সময় প্রচুর ফুল ফোটে। ফলে গায়ে হলুদে গাঁদা, ডালিয়া, চন্দ্রমল্লিকা, জারবেরা এগুলোতে ফুলের সমস্যা হয় না।

ফুলের দিক থেকে গোলাপেরই দাবিই বেশি। আর এ ফুলটিও শীতকালে সহজেই পাওয়া যায়। বেলিও ঠিকই নিজের জায়গা করে নেয় এই উৎসবে। এছাড়াও কম-বেশি সব ফুলই এ সময় পাওয়া যায়।

এছাড়া ফ্যান বা এসির ঝামেলা নেই। বিদ্যুৎ খরচ কম হয়। বিয়ের অবশিষ্ট খাবার নষ্ট হওয়ারও আশঙ্কা কম। শীত মানেই ঘুরাঘুরি। তাই বিয়ের পরই হানিমুনে ঘোরাঘুরির জন্যও শীতকাল সেরা।

  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন
  গুগল নিউজে ফলো করে আজকের প্রসঙ্গ এর সাথে থাকুন